৬৪ জেলার মাটির মানচিত্র আনুষ্ঠানিকভাবে জাতীয় জাদুঘরে হস্তান্তর

Spread the love

এই প্রথম বাংলাদেশের ৬৪ জেলার মাটি সংগ্রহ করে স্ট্যামফোর্ড ইউনির্ভাসিটির ফিল্ম অ্যান্ড মিডিয়া বিভাগের  সদ্য স্নাতক পাশ করা শিক্ষার্থী, ফরিদপুরের সন্তান শুভঙ্কর পাল নির্মাণ করেছেন মাটির মানচিত্র।

ফরিদপুরের আলফাডাঙ্গা উপজেলার বুরাইচ ইউনিয়নের বারাংকুলা গ্রামের তরুণ শুভঙ্কর পালের বাবা পল্লী চিকিৎসক নিহার রঞ্জন পাল। মা অমৃতা পাল। দুই ভাইয়ের মধ্যে তিনি বড়।

শুভঙ্করের শখ ছিল সাইকেলে দেশের ৬৪টি জেলা ঘুরে দেখার, স্বপ্ন ছিল প্রতিটি জেলার মাটির রূপ, রস স্বশরীরে ছুঁয়ে দেখার। বাদ সাধলেন বাবা। তাই স্বপ্ন দেখেন দেশের ৬৪ জেলার মাটি সংগ্রহ করে বাংলাদেশের মানচিত্র নির্মাণের। যাতে একসঙ্গে ৬৪ জেলার মাটি স্পর্শ করা যাবে। তাই স্বপ্ন পূরণে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক-এ নিজ নিজ জেলার মাটি পাঠানোরে আহ্বান জানান বন্ধুদের।

তার আহ্বানে এগিয়ে আসে অনেকেই। তারপরও অপূর্ণতা থেকে যায় কয়েকটি জেলা থেকে কেউ সারা না দেওয়ায়। এগিয়ে আসেন তৎকালীন ফরিদপুরের জেলা প্রশাসক উম্মে সালমা তানজিয়া। সহযোগিতা করেন বিভিন্ন জেলার মাটি সংগ্রহে।

এছাড়াও মাটি সংগ্রহে সহযোগিতা করেন আশির দশকের অন্যতম কবি সৈয়দ তারেক এবং কবি ও সাংবাদিক আমীর চারু বাবলু।

তরুণ এই উদ্ভাবকের মানচিত্রটি অবশেষে বাংলাদেশ জাতীয় যাদুঘর ‘প্রাকৃতিক ও ইতিহাস বিভাগ’আনুষ্ঠানিকভাবে প্রদর্শনীর লক্ষ্যে সংগ্রহ করেছে ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *