হরিয়ানায় ক্ষমতায় আসতে জোর লড়াই বিজেপি-কংগ্রেসের

Spread the love

টানা দ্বিতীয়বারের জন্য ভারতের মহারাষ্ট্রে সরকার গড়তে চলেছে বিজেপি-শিবসেনা জোট। গত সোমবার রাজ্যটির বিধানসভার ২৮৮টি আসনে নির্বাচন হয়। বৃহস্পতিবার তার গণনা। সকাল ৮টায় গণনা শুরু হওয়ার কিছু পর থেকেই ছবিটা পরিষ্কার হয়ে যায় যে ফের মুখ্যমন্ত্রী হতে চলেছেন বিজেপি নেতা দেবেন্দ্র ফড়নবিস।

এখনও পর্যন্ত পাওয়া ফলাফলে ২৮৮টি আসনের মধ্যে বিজেপি-শিবসেনা জোট এগিয়ে রয়েছে ১৬০টি আসনে। বিরোধী জাতীয় কংগ্রেস-ন্যাশনালিস্ট কংগ্রেস পার্টি (এনসিপি) জোট ৯৭টি আসনে এগিয়ে আছে। অন্যরা এগিয়ে আছে ৩১টি আসনে।

হেভিওয়েট প্রার্থীদের মধ্যে দক্ষিণ-পশ্চিম নাগপুর কেন্দ্রে বিজেপির দেবেন্দ্র ফড়নবিস, শিবসেনা প্রধান উদ্ধব ঠাকরের পুত্র আদিত্য ঠাকরে, এনসিপি প্রার্থী সাবেক উপমুখ্যমন্ত্রী অজিত পাওয়ার, দলের প্রধান শারদ পাওয়ারের নাতি রোহিত পাওয়ার-প্রত্যেকেই নিজেদের কেন্দ্রে এগিয়ে আছেন। যদিও বিজেপি সরকারের অন্তত ছয় গুরুত্বপূর্ণ মন্ত্রীরা তাদের কেন্দ্রে বিরোধী প্রার্থীদের চেয়ে পিছিয়ে আছেন। তবে সেই খবর সেলিব্রিশনে ভাটা ফেলেনি। দ্বিতীয়বারের জন্য ক্ষমতায় আসার খবরে মহারাষ্ট্রের বিভিন্ন প্রান্তে জয়ের উল্লাস শুরু হয়েছে বিজেপি-শিবসেনা জোটের সমর্থকদের মধ্যে।

অন্যদিকে, হরিয়ানা রাজ্যে বিজেপি ও বিরোধী দল কংগ্রেসের মধ্যে হাড্ডাহাড্ডি লড়াইয়ের ইঙ্গিত পাওয়া গেছে। সোমবারই মহারাষ্ট্রের সাথে হরিয়ানাতে বিধানসভার নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। বিধানসভার ৯০টি আসনের মধ্যে এখনও পর্যন্ত বিজেপি এগিয়ে রয়েছে ৪১টি আসনে, কংগ্রেস এগিয়ে আছে ২৯টি আসনে। জননায়ক জনতা পার্টি (জেজেপি) ১১টি এবং অন্যরা ৭টি আসনে এগিয়ে থাকার খবর পাওয়া গেছে।

কারনাল কেন্দ্রে এগিয়ে আছেন হরিয়ানার মুখ্যমন্ত্রী মনোহরলাল খাট্টার, এগিয়ে রয়েছেন সাবেক মুখ্যমন্ত্রী তথা কংগ্রেস নেতা ভূপিন্দর সিং হুডা, কংগ্রেস প্রার্থী রণদীপ সিং সুরজেওয়ালা প্রমুখ।

এর পাশাপাশি দেশজুড়ে ১৮টি রাজ্যের ৫১টি বিধানসভা ও দুইটি লোকসভা আসনে উপনির্বাচনের গণনাও চলছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *