স্বর্প দংশনে আহত চা শ্রমিক রঞ্জন গোয়ালার চিকিৎসা অবহেলায় মৃত্যুতে বিক্ষোভ

Spread the love
  • 3
    Shares

স্বর্প দংশনে আহত চা শ্রমিক রঞ্জন গোয়ালার চিকিৎসা অবহেলায় মৃত্যুতে বিক্ষোভ

শ্রীমঙ্গল (মৌলভীবাজার) প্রতিনিধি || শ্রীমঙ্গলে যথাযথ চিকিৎসার অভাব ও দায়িত্বে অবহেলার কারণে সাপের কামড়ে অাহত রঞ্জন গোয়ালার মৃত্যুতে বিক্ষোভ মিছিল করেছে কাকিয়াছড়া ও ফুলছড়া চা বাগানের শ্রমিকেরা।

মঙ্গলবার সকালে শ্রীমঙ্গল উপজেলায় ফিনলে চা বাগানের ফুলছড়া অফিসের সামনে এ বিক্ষোভ করে শ্রমিকেরা। এ সময় ৬টা থেকে সকাল সাড় ৮টা পর্যন্ত শ্রীমঙ্গল-কালীঘাট সড়কে যান চলাচল বন্ধ থাকে।

চা শ্রমিক প্রয়াত রঞ্জন গোয়ালার (৪৫) বাড়ি উপজেলার কালীঘাট ইউনিয়নের কাকিয়াছড়া চা বাগানে।

ফিনলে বালিশিরা ডিভিশনের জিএম সৈয়দ সালাউদ্দিন ঘটনাস্থলে এসে সহযোগিতার আশ্বাস দিলে পরিস্থিতি শান্ত হয়।

বালিশিরা ডিভিশনের জিএম সৈয়দ সালাউদ্দিন জানান, শ্রমিক আন্দোলনের খবর পেয়ে সাথে সাথেই তিনি ঘটনাস্থলে যান। শ্রমিক নেতাদের নিয়ে রঞ্জনের পরিবারকে প্রয়োজনীয় সহযোগিতার আশ্বাস দিয়ে লাশ সৎকারের ব্যবস্থা করেন।

৮ নং কালীঘাট ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান প্রাণেশ গোয়ালা জানান, বাগানের হাসপাতালে চিকিৎসার অবহেলায় সাপের কামড়ের রোগীর মৃত্যুর ঘটনায় মঙ্গলবার সকালে শ্রমিকরা উত্তেজিত হয়ে শ্রীমঙ্গল ফিনলে চা বাগানের ফুলছড়া অফিস ভাংচুর করে। এ সময় তারা রাস্তাও বন্ধ করে রাখে।

বাগানের বাসিন্দা সুধীর চাষা জানান, গত শুক্রবার ফুলচড়া কালিটিলার নিচে বাগানের কাজ করার সময় রঞ্জন গোয়ালাকে সাপ কাটে।

প্রথমে রঞ্জনকে তাদের বাগানের হাসপাতালে নিয়ে যায় শ্রমিকরা। পরে সেখান থেকে ফিনলের বালিশিরা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।
চার দিন চিকিৎসার পর অবস্থার অবনতি হলে গত রোববার রাতে তাকে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সোমবার রাত সাড়ে ১০টায় রঞ্জনের মৃত্যু হয়।

তিনি জানান, হাসাতালের চিকিৎসকরা ‘সময় মতো চিকিৎসা না করায় মৃত্যু হয়েছে’ বলেছেন, এমন কথা ছড়িয়ে পড়লে শ্রমিকরা উত্তেজিত হয়ে মঙ্গলবার সকালে লাশ নিয়ে মিছিল করে।

এদিকে, শ্রীমঙ্গল উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. সাজ্জাত হোসেন চৌধুরী জানান, বাগানের হাসপাতালে সাপের কামড়ের ভ্যাকসিন থাকার কথা নয়। বিষয়টি তিনি দেখবেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *