শ্রীমঙ্গল শহরে বাড়ছে বন্য প্রানীদের আনাগোনা। Bangladesh Protikhon

Spread the love

আবুজার বাবলা, শ্রীমঙ্গল(Bangladesh Protikhon):

শ্রীমঙ্গলের বাসা বাড়ি, পুকুর, গাড়ী, মাছের বাজার এমনকি কসমেটিক এর দোকানে ঢুকে পরছে বনের প্রাণী। প্রায় প্রতিদিনই ঘটছে এমন ঘটনা। বন্যপ্রানী সংশ্লিষ্টদের মত, বিপন্ন পরিবেশের কারণে বনে বন্যপ্রাণীদের খাদ্যর চরম সংকট দেখা দেয়ায় তারা লোকালয়ে ভীড় করছে। এজন্য বন্য উজার এবং বনে প্রানীদের নিরাপদ চলাফেরায় বিঘ্ন সৃষ্টির জন্য মানুষকেই দায়ী করেছেন তারা।


শুক্রবার ৩০ জুলাই বিকাল ৪ টার দিকে শহরের সুরভীপাড়া আবাসিক এলাকা থেকে ১২ হাত লম্বা একটি অজগর সাপ পুকুরে সাঁতার কাটতে দেখেন উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক রাজু দেব রিটন। পরে রাজু দেব স্থানীয় যুবকদের সহায়তায় সাপটি ধরে থানায় নিয়ে আসেন। পরে বন বিভাগ ও বাংলাদেশ বন্যপ্রাণী সেবা ফাউন্ডেশনের লোকজন থানা থেকে সাপটি নিজেদের জিম্মায় নেন।
এসময় বন বিভাগের রেঞ্জ কমকর্তা দীন ইসলাম, বিট কমকর্তা আনিসুর জাম্মান, এফ জি তাজ্জুল ইসলাম, বাংলাদেশ বন্যপ্রাণী সেবা ফাউন্ডেশনের পরিচালক স্বপন দেব সজল, পরিবেশ কর্মী রাজদীপ দেব দীপ, ছাত্রলীগ সেক্রেটারি রাজু দেব ও লন্ডন প্রবাসী শিমেল উপস্থিত ছিলেন । পরে তারা
বনে নিয়ে সাপটি অবমুক্ত করেন।
শহর থেকে বিশালাকৃতির অজগর ধরা পরার একদিন আগে শুক্রবার ২৯ জুলাই বিকালে কালাপুর ইউনিয়নের রাজাপুর গ্রামের ‘বড়বাড়ি’তে একটি গুঁইসাপ আটক করে এলাকাবাসী। সাপটি ওই বাড়িতে ঢুকে মুরগী ধরার চেষ্টা করতে গিয়ে ধরা পরে।
এর এক সপ্তাহ আগে শহরের একটি মার্কেটের এক কসমেটিক দোকান থেকে আরো একটি সাপ উদ্ধারের ঘটনা ঘটে।
বন্যপ্রাণী সেবা ফাউন্ডেশনের পরিচালক স্বপন দেব সজল বলেন, শহরে বন্য প্রানীদের আনাগোনা বেড়েছে উদ্বেগজনক ভাবে।
ইতিপূর্বে হাট বাজার, লেবুর জীপ, কৃষি জমি, কৃষকের বাড়ি থেকে বন্যপ্রাণী ধরা পড়েছে। তিনি বলেন, এ পর্যন্ত কোন হতাহতের ঘটনা না ঘটলেও অনেক হিংস্র ও বিষাক্ত প্রাণী রয়েছে। ফলে আক্রমনের আশংকাও থাকে। সজল দেব বলেন, মানুষ এবং প্রাকৃতিক নানা কারনে বনে প্রাণীদের খাদ্যের উৎস কমতে শুরু করেছে। ফলে বন্য প্রাণীরা খাবারের সন্ধানে লোকালয়ে দিকে আসছে। তিনি মনে করেন, শহর থেকে রিজার্ভ ফরেস্ট ও চা বাগানের নৈকট্যের কারনে প্রানীরা সহজে লোকালয়ে ঢুকে পরছে। এজন্য বনকে প্রাণীদের নিরাপদ অভয়ারণ্য নিশ্চিত করার উপর জোর দেন তিনি।
এক পরিসংখ্যান মতে গত ৬ মাসে শ্রীমঙ্গল শহর ও শহরতলী থেকে ২ ডজনের বেশী বন্যপ্রাণী উদ্ধারের ঘটনা ঘটেছে। কয়েক প্রজাতির সাপ ছাড়াও উদ্ধার হওয়া প্রাণীদের তালিকায় বন রুই, গুঁইসাপ, বানর, এমনকি চিত্রা হরিণ সাবকও রয়েছে।

Bangladesh Protikhon

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *