শ্রীমঙ্গলে ভূমি ও গৃহহীন আরো ১৬০ পরিবার পাচ্ছে নতুন ঘর

Spread the love

নূর মোহাম্মদ সাগর, শ্রীমঙ্গল(মৌলভীবাজার)প্রতিনিধি:

মুজিব শতবর্ষ উপলক্ষে মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গলে ভূমি ও গৃহহীন আরো ১৬০ পরিবার নতুন ঘরে উঠবে। আগামী ২০ জুন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে এই ঘরগুলো উদ্বোধন করবেন। এর আগে প্রথম ধাপে এ উপজেলার ৩০০ জন গৃহহীন পরিবারকে নতুন ঘর দেওয়া হয়েছিল।
উপজেলা প্রশাসন থেকে জানা যায়, আশ্রয়ন-২ প্রকল্পের আওতায় দ্বিতীয় ধাপে উপজেলার কালপুর ইউনিয়নে মাইজদিহি পাহারে ২০ একর সরকারি জায়গায় ৩০০টি ঘর নির্মাণ করা হচ্ছে। এসব ঘরে বসবাস করবে প্রায় ১৫০০ লোক। এর মধ্য ১৬০টি ঘরের নির্মাণ কাজ প্রায় শেষ পর্যায়ে রয়েছে।
মঙ্গলবার প্রকল্প এলাকা পরিদর্শন করেন অনুমিত হিসাব সম্পর্কিত সংসদীয় কমিটির সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা উপাধ্যক্ষ ডা. মো আব্দুস শহীদ এমপি , সাথে ছিলেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নজরুল ইসলাম, উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মো. আছাদুজ্জামান ও কালাপুর ইউপি চেয়ারম্যান মো. মজিবুল রহমান মুজিব।


প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মো. আছাদুজ্জামান বলেন, এ প্রকল্পটি ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের ভৈরব বাজার থেকে মাত্র দেড় কিলোমিটার দূরে। আর উপজেলা সদর থেকে দূরুত্ব মাত্র ১০ কিলোমিটার। যোগাযোগ ব্যবস্থা খুবই ভাল। চারদিকে সবুজ প্রকৃতি। প্রকল্প এলাকার এক কিলোমিটারের মধ্য রয়েছে ইউনিয়ন পরিষদ, কমিউনিটি ক্লিনিক ও একটি মাধ্যমিক বিদ্যালয়। তাই এখানে আমরা ‘আমার গ্রাম আমার শহর’ গড়ে তুলব। এছাড়া প্রকল্প এলাকায় সরকারি ১ নম্বর খাস খতিয়ানে বন্দোবস্ত অযোগ্য ১০০ একর ভূমি রয়েছে। সেখানে লেবু, আনারস চাষের মাধ্যমে কর্মসংস্থানের সুযোগ হবে।
উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নজরুল ইসলাম বলেন, এই প্রকল্পের লোকেশন চমৎকার। তাই এখানে যারা বসবাস করবে তাদের জন্য আমরা এখানে ডিজিটাল বাংলাদেশের সব-সুযোগ সুবিধা করে দেব। এখানে একটি প্রাথমিক বিদ্যালয়, একটি মসজিদ, একটি মন্দির নির্মাণ করা হচ্ছে। এছাড়া বিদ্যুৎ, পানি, ইন্টারনেট, যোগাযোগ ও গ্রোথ সেন্টারসহ সবকিছুই থাকবে।


অনুমিত হিসাব সম্পর্কিত সংসদীয় কমিটির সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা উপাধ্যক্ষ ডা. মো আব্দুস শহীদ এমপি বলেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্ন ছিল দেশের একটি মানুষও গৃহহীন থাকবে না। আজ মুজিব শতবর্ষ উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রী শেথ হাসিনা তার বাবার সেই স্বপ্ন পূরণ করছেন। তিনি গৃহহীনদের ঘর বানিয়ে দিচ্ছেন। এটা আমাদের সবার জন্য গর্ব।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *