রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালেও হবে করোনা পরীক্ষা, পৌঁছেছে পিপিই ও পিসিআর

Spread the love

স্টাফ রিপোর্টার” শেখ জুয়েল রানা’

রাজশাহী, ২৮ মার্চ ২০২০: এখন থেকে রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালেও (রামেক) হবে করোনাভাইরাস সনাক্তকরণ পরীক্ষা। এরই মধ্যে করোনাভাইরাস শনাক্তে রোগীর নমুনা পরীক্ষার জন্য পলিমার চেইন রিঅ্যাকশন (পিসিআর) মেশিন পেয়েছে রামেক হাসপাতাল। বৃহস্পতিবার (২৬ মার্চ) সন্ধ্যায় মেশিনটি রামেক হাসপাতালের ল্যাবে গিয়ে পৌঁছেছে।
একই সাথে করোনার চিকিৎসায় সেবা সংশ্লিষ্টদের জন্য একহাজার ব্যক্তিগত সুরক্ষা উপকরণও (পিপিই) পৌঁছেছে রাজশাহীতে। এছাড়াও এক হাজার পিস মাস্ক, এক হাজার হ্যান্ড-গ্লাভস এবং পর্যাপ্ত পরিমাণ স্যানিটাইজার পাঠানো হয়েছে।

জানতে চাইলে রামেক হাসপাতালের পরিচালনা পর্ষদের সভাপতি, বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক ও রাজশাহী-২ (সদর) আসনের সংসদ সদস্য ফজলে হোসেন বাদশা এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, শিগগিরই গণপূর্ত বিভাগ মেশিনটির স্থাপনকাজ শেষ করবে। আর মেশিনটি স্থাপন হলেই এটির মাধ্যমে করোনাভাইরাস শনাক্তের পরীক্ষা সম্ভব হবে। আশা করছি, এর মধ্যেই হাসপাতালে করোনা পরীক্ষার পর্যাপ্ত কিটও চলে আসবে।

বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক ও রামেক হাসপাতাল পরিচালনা পর্ষদ সভাপতি ফজলে হোসেন বাদশা এমপি আরও বলেন, মেশিনটি স্থাপন ও তা পরিচালনার জন্য রাজধানী ঢাকা থেকে বিশেষজ্ঞ আসবেন। মেশিন স্থাপনের পর তারা স্থানীয়ভাবে যারা পরিচালনা করবেন তাদের প্রশিক্ষিত করবেন। খুব শিগগিরই কাজটি শেষ হবে বলে আশা করা যাচ্ছে। আর কেবল রাজশাহী নয় রংপুরসহ দেশের আরও ছয়টি মেডিক্যাল কলেজে পিসিআর মেশিন পাঠানো হয়েছে। শিগগিরই সেগুলো স্থাপন করা হবে।

এদিকে, বৃহস্পতিবার করোনা চিকিৎসায় সেবা সংশ্লিষ্টদের জন্য একহাজার ব্যক্তিগত সুরক্ষা উপকরণও (পিপিই) পৌঁছেছে রাজশাহীতে। ঢাকা থেকে এসব উপকরণ পাঠানো হয়েছে বলে নিশ্চিত করেছেন- রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের উপ-পরিচালক ডা. সাইফুল ইসলাম ফেরদৌস। তিনি জানান, পিপিই স্বল্পতা কাটাতে এই এক হাজার পিস পিপিই কাজে দেবে। এছাড়াও এক হাজার পিস মাস্ক, এক হাজার হ্যান্ড-গ্লাভস এবং পর্যাপ্ত পরিমাণ স্যানিটাইজার পাঠানো হয়েছে। শুক্রবার এসব পিপিই চিকিৎসা কাজে সংশ্লিষ্টদের মাঝে সরবরাহ করা হয়েছে।

এক প্রশ্নের জবাবে রামেক হাসপাতালের উপ-পরিচালক ডা. সাইফুল ইসলাম ফেরদৌস বলেন, এতদিন মেশিনটির জন্য তারা অপেক্ষা করছিলেন। এটি না থাকায় তারা করোনা শনাক্তের কাজে হাত দিতে পারেননি। তাদের চাহিদা মত শেষ পর্যন্ত মেশিনটি পৌঁছেছে। এখন মেশিনটি স্থাপন ও কিট এসে গেলে রামেক হাসপাতালেই পরীক্ষা করা যাবে। আর এক দিনের মধ্যেই রিপোর্ট পাওয়া যাবে। তবে এখন পর্যন্ত রাজশাহীতে করোনা রোগী শনাক্ত হয়নি বলেও উল্লেখ করেন হাসপাতাল উপপরিচালক।

সারাদেশেই নমুনা পরীক্ষার জন্য পলিমার চেইন রিঅ্যাকশন (পিসিআর) মেশিন ও ব্যক্তিগত সুরক্ষা উপকরণ (পিপিই) সরবরাহ করা দরকার বলে দাবি করেছেন বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির মৌলভীবাজার জেলা সম্পাদক মন্ডলীর সদস্য, অারপি নিউজের সম্পাদক ও বিশিষ্ট কলামিস্ট সৈয়দ অামিরুজ্জামান।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *