বহুমাত্রিক লেখক ও প্রগতিশীল রাজনীতিবিদ সৈয়দ আমিরুজ্জামান আপাদমস্তক অসাম্প্রদায়িক

Spread the love

শেখ জুয়েল রানা ।। শ্রীমঙ্গল,

১২ ফেব্রুয়ারি ২০২০ : প্রথিতযশা প্রথাবিরোধী বহুমাত্রিক লেখক ও প্রগতিশীল রাজনীতিবিদ সৈয়দ অামিরুজ্জামান অাপাদমস্তক অসাম্প্রদায়িক। তাঁর সাথে তুলনীয় শ্রীমঙ্গলে কেউ নেই।
সৈয়দ আমিরুজ্জামান শিক্ষা ও মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক গবেষক এবং পন্ডিত। বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির মৌলভীবাজার জেলা সম্পাদক মন্ডলীর সদস্য, সাপ্তাহিক নতুন কথা’র বিশেষ প্রতিনিধি, অারপি নিউজের প্রধান সম্পাদক ও বিশিষ্ট কলামিস্ট।

তিনি ‘৮২ থেকে ৯০ সাল পর্যন্ত এরশাদ স্বৈরাচার বিরোধী কুমিল্লার ছাত্র গণঅান্দোলনে নেতৃত্ব করেছেন। সৈয়দ অামিরুজ্জামান কেন্দ্রীয় পর্যায়েও অান্দোলনসহ গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব পালন করেছেন। কুমিল্লায় বিভিন্ন সময়ে গঠিত ছাত্র সংগ্রাম পরিষদ, সর্বদলীয় ছাত্র ঐক্য, সাম্প্রদায়িকতা বিরোধী ছাত্র সমাজ ও গণতান্ত্রিক ছাত্র ঐক্যের অন্যতম নেতা। মুক্তিযুদ্ধের চেতনা বাস্তবায়ন ও ‘৭১-এর ঘাতক দালাল নির্মূল জাতীয় সমন্বয় কমিটির সদস্য। কৃষক মুক্তি সমিতি ও খেতমজুর ইউনিয়নের সাবেক কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য।

বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব লেবার স্টাডিজ-বিলস থেকে মডিউল-১, ২, ৩-এর প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত প্রশিক্ষক। বিএনসিসি’র প্রাক্তন ক্যাডেট। কুমিল্লা বীরচন্দ্র গণ-পাঠাগার ও নগর মিলনায়তনের সদস্য।
‘৯০-এর মহান গণঅভ্যুত্থানের সংগঠক, বাংলাদেশ ছাত্রমৈত্রীর সাবেক কেন্দ্রীয় নেতা ও কুমিল্লা জেলা শাখার সাবেক সভাপতি, বাংলাদেশ অাইন ছাত্র ফেডারেশনের সাবেক কেন্দ্রীয় সভাপতি, কুমিল্লা ভিক্টোরিয়া সরকারি ডিগ্রি কলেজ ও কুমিল্লা ল’ কলেজের জননন্দিত সাবেক ছাত্র নেতা সৈয়দ অামিরুজ্জামান সাংবাদিকতা-লেখালেখির পাশাপাশি আর্থ-সামাজিক ব্যবস্থার আমূল পরিবর্তন অভিমূখী অসাম্প্রদায়িক, গণতান্ত্রিক ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনার ধারায় জনগণের অধিকার প্রতিষ্ঠার সংগ্রামে এখনও সক্রিয়।বিভিন্ন জাতীয় দৈনিক ও সাপ্তাহিক পত্রিকায় নিয়মিত কলাম লিখছেন তিনি। জাতীয় পত্র-পত্রিকায় প্রকাশিত প্রবন্ধ-নিবন্ধের সংখ্যা ১০ হাজার ছাড়িয়ে গেছে। ১৯৮০ সালে কৃষি কথা’য় কবিতা প্রকাশ, ১৯৮৬ সালে সাপ্তাহিক নতুন কথা’য় রিপোর্টিংয়ের মাধ্যমে সাংবাদিকতার শুরু। ১৯৯৭ সালে ১৪ জুন দিবাগত রাত পোনে ২টায় মৌলভীবাজার জেলার অন্তর্গত কমলগঞ্জের মাগুরছড়া গ্যাসক্ষেত্রে ব্লো-অাউটের পর থেকেই ক্ষতিপূরণের দাবীতে অব্যাহত অান্দোলনে নেতৃত্ব দিয়ে অাসছেন। এই অান্দোলনের কিংবদন্তি এই নেতা ‘মাগুরছড়ার গ্যাস সম্পদ ও পরিবেশ ধ্বংসের ক্ষতিপূরণ অাদায় জাতীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক।বিশ্বসাহিত্য কেন্দ্রের শ্রীমঙ্গল শাখার সংগঠক।
সৈয়দ অামিরুজ্জামান ১৯৮৩ সালে এসএসসি, ১৯৮৫ সালে এইচএসসি, পরবর্তীতে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের অান্ডারে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়া সরকারি ডিগ্রি কলেজ থেকে স্নাতক, ৯২ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ইংরেজিতে ডিপ্লোমা ও পরবর্তীতে সিলেট ইন্টারন্যাশনাল বিশ্ববিদ্যালয় থেকে এলএলবি পাস করেন।

বাবা ‘৭১-এর বীর মুক্তিযোদ্ধা, কুমিল্লার রহমানপুর দরবার শরীফের গদ্দীনশীন পীর, ওলামায়ে অাহলে সুন্নত ওয়াল জামাঅা’তের সভাপতি, মিশরের কায়রোস্থ পৃথিবী বিখ্যাত অাল অাজহার বিশ্ববিদ্যালয়ের গ্রান্ড মুফতি, নিজাম হায়দ্রাবাদের একটি কলেজের প্রাক্তন অধ্যাপক, অসংখ্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রতিষ্ঠাতা ও শিক্ষক, প্রথিতযশা তফসিরকারক ও মোহাদ্দেস, অসংখ্য গ্রন্থ প্রণেতা মুফতিয়ে অাজম গাজী সাইয়্যেদুনা অাবুতাহের রহমানপুরী।
মা সৈয়দা রোকেয়া খাতুন। নানা বিশিষ্ট সমাজ সংস্কারক প্রয়াত প্রকৌশলী সৈয়দ অাব্দুল মোতালেব। দাদা জিন্দাপীর সুফি দরবেশ সাইয়্যেদুনা লাল মিয়া মুন্সি।।
সৈয়দ আমিরুজ্জামান ছাত্র সমাজের রক্তস্নাত ১০ দফা, শিক্ষার অধিকার প্রতিষ্ঠার সংগ্রামসহ দুই হাজার দশ সালে প্রণীত জাতীয় শিক্ষানীতি প্রণয়নের ক্ষেত্রে জনমত সংগঠনে সক্রিয়ভাবে ভূমিকা রেখেছেন।
সৈয়দ অামিরুজ্জামান, সবক্ষেত্রেই তোমার উত্তরোত্তর সফলতা কামনা করি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *