নারী শিক্ষা নিয়ে কথার অর্থ হচ্ছে দেশকে পিছিয়ে দেয়া : বলেন মেনন

Spread the love

প্রতিনিধি-শেখ জুয়েল রানা
২২ জানুয়ারি ২০২০: “বাংলাদেশ প্রাথমিক শিক্ষায় লিঙ্গ ও সমতা ইতিমধ্যে অর্জন করেছে। মাধ্যমিক শিক্ষাতেও মেয়েরা প্রায় ছেলেদের চেয়ে কাছাকাছি রয়েছে। কিন্তু দুর্ভাগ্যজনকভাবে হলেও সত্য নারী শিক্ষা নিয়ে যে সমস্ত উচ্চারণ করা হচ্ছে আজকাল বিভিন্ন মহল থেকে সেটা কেবলমাত্র নারী শিক্ষাক্ষেত্রে নয়, সামগ্রিক শিক্ষার জন্য দুর্ভাগ্যজনক। নারী শিক্ষার অগ্রগতিতে ঈর্ষান্বিত হয়ে কেউ যদি এটা বলেন যে, সেখানে অশালীন কাজ করে তাহলে সেটা কখনই গ্রহণযোগ্য নয়। অথচ সমাবেশে, বক্তৃতায়, ইউটিউবে এসব কথাগুলো প্রচার হচ্ছে। সরকার যেখানে নারী শিক্ষার ব্যাপারে সবচেয়ে জোর দিচ্ছেন সেখানে এ ধরনের বক্তব্যের অর্থ হচ্ছে দেশকে পিছিয়ে দেয়া। আজকে নতুন প্রজন্ম তাদেরকে নারী শিক্ষায় শিক্ষিত হয়ে আগামী দিনে এই সুবর্ণজয়ন্তীর এই প্রাক্কালে দাঁড়িয়ে তাদেরকে আরও যোগ্য ও দক্ষ হয়ে উঠে দেশের হাল ধরতে হবে। কেবলমাত্র ম্যাজিস্ট্রেট, ডেপুটি ম্যাজিস্ট্রেট হওয়া নয়, সামগ্রিকভাবে রাজনৈতিক ক্ষমতাও তাদেরকে অর্জন করতে হবে। এটার জন্য প্রয়োজন যোগ্য ছাত্র-ছাত্রী হিসেবে নিজেদেরকে পরিচিত করা এবং সেই স্কুল-কলেজগুলোকে সেভাবেই সেই পরিবেশ তৈরি করা।”
মঙ্গলবার সকাল ১০টায় সিদ্ধেশ্বরী উচ্চ বালিকা বিদ্যালয়ের মুজিববর্ষে ক্রীড়া প্রতিযোগিতা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের পুরস্কার বিতরণ করতে গিয়ে প্রধান অতিথির বক্তব্যে বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি ও ঢাকা-৮ আসনের মাননীয় সংসদ সদস্য রাশেদ খান মেনন একথা বলেন।
সভায় সভাপতিত্ব করেন স্কুলের সভাপতি বিশিষ্ট মুক্তিযোদ্ধা শেখ রাইসুল ইসলাম ময়না।
রাশেদ খান মেনন আরও বলেন, শিক্ষা ও খেলাধুলার ক্ষেত্রে সিদ্ধেশ্বরী উচ্চ বালিকা বিদ্যালয় এই এলাকার সেরা শিক্ষা প্রতিষ্ঠান হিসেবে পরিচিতি পাচ্ছে। তিনি এই স্কুলের পরীক্ষার ফলাফলে সন্তোষ প্রকাশ করেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *