করোনা কালীন পরিস্থিতিতে শিশুর খতনা করানো হাজামদের খবর নিচ্ছে না কেউই – বাংলাদেশ প্রতিক্ষণ

Spread the love

বাংলাদেশ প্রতিক্ষণ ডেস্কঃ

ছেলে শিশু একটু বড় হলেই মা-বাবার দুচিন্তা থাকে শিশুকে খতনা করানো নিয়ে। খতনা নিয়ে দেশে বেশি প্রচার না হওয়ায় এখনো দেশের অনেক শিশুর খতনা হাজামের মাধ্যমেই করানো হয়। অনেকে আবার হাসপাতালে শিশুর খতনা করিয়ে থাকেন।

শ্রীমঙ্গল উপজেলার আশিদ্রোন ইউনিয়নের টিকরিয়া গ্রামের মোঃ মন্তাজ মিয়া বলেন, “আমার বয়স ৬০ বছর এর মাঝে ৩৫ বছর যাবত আমি খতনা হাজামের কাজ করে যাচ্ছি। তিনি আরও বলেন আমার দাদা ও বাবা উনারা খতনা হাজামের কাজ করেছেন আমিও করছি।”

খতনা করতে কোন টাকা নেন কি না? এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, “আমি একটা খতনা বাবদ খরছ ৭০০ টাকা নেই এটা দিয়ে আমার পুশায় না। এর মধ্যে গরীব অসহায় মানুষের ছেলেদের খতনায় কোন টাকা নেই না। করোনাকালীন সময় আমি আমার ১০ জনের বড় পরিবার নিয়ে চলা খুবই মুশকিল হয়ে পড়েছে। করোনার সময় কেউ খতনা করাতে চান না। ”

এক জরিপে দেখা যায় শ্রীমঙ্গল উপজেলায় দুইজন হাজাম আছে তারা খতনার কাজ করে যাচ্ছেন।
মোঃ মন্তাজ মিয়া, মোঃ বাবুল মিয়া এই দুজনই হাজামের কাজ করে থাকেন।

বাংলাদেশ প্রতিক্ষণ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *