আবারো বিদ্যুতের দাম বাড়ালো সরকার : প্রতিবাদ জানালো ওয়ার্কার্স পার্টি

Spread the love

স্টাফ রিপোর্টার” শেখ জুয়েল রানা’

ঢাকা, ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২০: পাইকারী ও খুচরা পর্যায়ে আবারো বাড়ানো হয়েছে বিদ্যুতের দাম। খুচরা পর্যায়ে প্রতি ইউনিট বিদ্যুতের দাম বেড়েছে ৩৬ পয়সা। খুচরা পর্যায়ে আগে প্রতি ইউনিট বিদ্যুতের দাম যেখানে ৬ টাকায় ৭৭ পয়সা ছিলো, তা বেড়ে ৭ টাকা ১৩ পয়সা করেছে বাংলাদেশ জ্বালানি নিয়ন্ত্রণ কমিশন।
এছাড়া পাইকারী পর্যায়ে প্রতি ইউনিট বিদ্যুতের দাম ৪ টাকা ৭৭ টাকা থেকে বেড়ে ৫ টাকা ১৭ পয়সা নির্ধারণ করা হয়েছে।
বৃহস্পতিবার সংবাদ সম্মেলনে বিদ্যুতের দাম বাড়ানোর এই ঘোষণা দেয়া হয়। আগামী পহেলা মার্চ থেকে বিদ্যুতের এই নতুন দাম কার্যকর হবে।

রাজধানীর ট্রেডিং কর্পোরেশন অব বাংলাদেশ (টিসিবি) অডিটোরিয়ামে ২০১৯ সালের ২৮ নভেম্বর থেকে বিদ্যুতের দাম বাড়ানোর প্রস্তাবের ওপর শুনানি শুরু হয়।
বাংলাদেশ এনার্জি রেগুলেটরি কমিশন (বিইআরসি) বিদ্যুতের দাম বাড়ানোর ইস্যুতে ওই গণশুনানি করে।
শুনানিতে বাংলাদেশ বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ড (পিডিবি) পাইকারি বিদ্যুতের দাম ২৩ দশমিক ২৭ শতাংশ বাড়ানোর প্রস্তাব করেছিল। বিপরীতে কমিশনেরকারিগরি মূল্যায়ন কমিটি ১৯ দশমিক ৫০ শতাংশবাড়ানোর প্রয়োজন বলে মন্তব্য করে।

আবার বিদ‌্যুতের দাম বাড়ানোর উদ্যোগের প্রতিবাদ জানিয়ে বাংলাদেশের ওয়ার্কর্স পার্টির মৌলভীবাজার জেলা সম্পাদক মন্ডলীর সদস্য, অারপি নিউজের প্রধান সম্পাদক ও বিশিষ্ট কলামিস্ট সৈয়দ অামিরুজ্জামান বলেন, পেঁয়াজসহ দ্রব্যমূল্যের লামামহীন ঊর্ধ্বগতিতে দেশের মানুষ যখন নাকাল অবস্থা। স্বল্প আয়ের মানুষ যখন বিপর্যস্ত, তখন বিদ্যুতের মূল্য বৃদ্ধির উদ্যোগ সমর্থন করা যায় না। অনতিবিলম্বে এ উদ‌্যোগ বন্ধ করার দাবি জানিয়ে তিনি অারও বলেন, বিদ্যুৎ ও জ্বালানী খাতে ধারাবাহিকভাবে চুরি-দুর্নীতি ও অব্যবস্থাপনার জন্য সাধারণ মানুষ কোনভাবেই মাশুল দিতে পারে না।
তিনি অারও বলেন, বিদ্যুৎখাতের সীমাহীন দুর্নীতি ও অব্যবস্থাপনা রোধ করা গেলে বিদ্যুতের মূল্যবৃদ্ধির পরিবর্তে দাম কমিয়ে আনার সুযোগ রয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *